ট্রাম্পের শরীরে অক্সিজেনের পরিমাণ কমছে, দুশ্চিন্তায় চিকিৎসক !

নিজস্ব সংবাদদাতা খবর ২৪: করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেডিক্যাল বুলেটিন শনিবার সামনে এসেছে। এই বুলেটিন অনুসারে, পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা ট্রাম্পের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাঁর জ্বর হয়নি। শুধুমাত্র হাল্কা কিছু উপসর্গ রয়েছে৷ তবে হোয়াইট হাউজ থেকে জারি করা বুলেটিনে রাষ্ট্রপতির স্বাস্থ্যের বিষয়ে বিশেষ কিছু বলা হয়নি। ট্রাম্পের চিফ অফ স্টাফ মার্ক মেডোজের বক্তব্য অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির অবস্থা অত্যন্ত উদ্বেগজনক, এমনই খবর প্রকাশিত হয়েছে নিউইয়র্ক টাইমসে। খবর অনুযায়ী, রবিবার ট্রাম্পের শারীরিক অবস্থা দুম করে অবণতি ঘটতে থাকে ৷ মেডিক্যাল বুলিটিনে ট্রাম্পের চিকিৎসক জানিয়েছেন, রবিবার প্রায় দু’বার ট্রাম্পের শরীরে অক্সিজেনের পরিমাণ কমতে শুরু করে ৷ শারীরিক অবস্থা দুম করে অবণতি হয়ে পড়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্টকে স্টেরোয়েড দেন চিকিৎসকরা ৷ ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়াও করোনার ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ওয়াল্টার রিড আর্মি হাসপাতালে তাঁর চিকিত্সা চলছে। একই সময়ে, মেলানিয়া হোয়াইট হাউসে আইসোলেশনে রয়েছেন। ট্রাম্প শুক্রবার করোনার পজিটিভ বলে জানান। একটি ট্যুইটের মাধ্যমে ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছিলেন যে, তিনি তাঁর স্ত্রীকে করোনায় আক্রান্ত। তিনি লিখেছেন যে, তাঁর এবং তাঁর স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের করোনার পরীক্ষা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। হোয়াইট হাউজের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ট্রাম্প ক্লান্ত বোধ করছেন তবে তিনি আশাবাদী দ্রুত সেরে উঠবেন। হোয়াইট হাউজ থেকে প্রকাশিত তথ্যে বলা হয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টকে ম্যালেরিয়া জ্বরের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। করোনার সংক্রমণের কোনও নিরাময় নেই, তবে ভাইরাসটি দুর্বল করার ক্ষেত্রে যে ওষুধগুলি সর্বাধিভাবে আলোচিত হয়েছে তার মধ্যে একটি হল রেমাদেসিভার। এই বছর মে মাসে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গুরুতর অসুস্থ করোনার রোগীদের চিকিৎসার জন্য এই ওষুধ অনুমোদিত করে। রেমিডিসিভির আমেরিকান ফার্মা সংস্থা গিলিয়েডের একটি অ্যান্টিভাইরাল ড্রাগ। আমেরিকা ভারত থেকে এই ওষুধের প্রচুর অর্ডার করেছিল।